Breaking News
Home > এক্সক্লুসিভ > প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে দেখি পেনটি ভেজা, বাসায় আমি ছাড়া আমার বাবা……

প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে দেখি পেনটি ভেজা, বাসায় আমি ছাড়া আমার বাবা……

আমার নাম কুনিকা, বয়স ১৮ বছর, বারো ক্লাস পড়ি. আমি বাবা মার বড় মেয়ে. আমার একটা ছোট ভাই আছে, ওর বয়স ১০ বছর. আমাদের চার জনের ছোট সংসার. বাবা একটা প্রাইভেট ফার্মে চাকরী করে. আমার বয়স ১৮ বছর হলেও এই বয়সেই আমার যৌবন ফেটে বের হচ্ছে. আমি ৫ ফুট ৩ ইঞ্চি লম্বা, দুধের সাইজ ৩৬”, গায়ের রং ধবধবে ফর্সা, কোমর পর্যন্ত ছড়ানো লম্বা কালো রেশমী চুল. যখন আয়নায় নিজেকে দেখি তখন আমি নিজেই অবাক হয়ে ভাবি আমি এতো সুন্দর.

আমি যখন থেকে বুঝতে শিখেছি তখন থেকেই পর্ন ফিল্ম দেখি, বাংলা চটি বই পড়ি. ছবি বইয়ের ফাঁকে রাখি, পড়ার নামে বই খুলে ছবি দেখি. তবে চোদাচুদি করার সাহস এখন পর্যন্ত হয়নি. একদিন আবিস্কার করলাম আমি যখন বাসায় থাকি না তখন বাবা আমার রুমে এসে পর্ন ছবি দেখে, বাংলা চটি বই পড়ে.

কিছুদিন পর আমি টের পেলাম বাবা আমার দিকে কেমন যেন কামুক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকে. আমার মনে হলো বাংলা চটি বই পড়ে বাবা বোধহয় আমাকে চায়, কারন চটি বইতে শুধু অজাচার মা ছেলের, ভাই বোনের, বাবা মেয়ের গল্প আছে.

একদিন আমার দিদা অসুস্থ হওয়াতে মা ছোট ভাইকে নিয়ে দিদাকে দেখতে গেল. রাতে আমি ও বাবা এক সাথে খেতে বসলাম.
খেতে খেতে বাবা বললো, “কুনিকা আজ তুমি আমার সাথে ঘুমাবে.”

এক অজনা শিহরনে আমার শরীর কেঁপে উঠলো, আজই বোধহয় বাবা আমার সাথে কিছু করতে চায়. আমি মাথা নেড়ে সম্মতি দিলাম. রাতে আমি ও বাবা এক বিছানায় শুলাম. আমি ঘুমিয়ে পড়েছিলাম, হঠাৎ আমার ঘুম ভেঙে গেলো.

আমি অনুভব করলাম আমার বুকে বাবার হাত নড়াচড়া করছে. বাবা কামিজের উপর দিয়ে আমার নরম বড় বড় দুটো টিপছে. এক সময় বাবা সালোয়ারের উপর দিয়ে আমার হাত দিলো. আমি শিউরে উঠে থেকে বাবার হাত সরিয়ে দিলাম.

– “বাবা এটা কি করছ?”
– “কেন কুনিকা তোমার ভালো লাগছে না?”
– “আমি যে তোমার মেয়ে.”
– “তুমি নারী আমি পুরুষ এটাই মূল পরিচয়, তাছাড়া তোমার চটি বইতে বাবা মেয়ের গল্প আছে, আমরা ঐ রকম করব.”
– “বাবা ওগুলো তো শুধু গল্প.”
– “আজ আমি তোমার কোন কথাই শুনবো না, আজ তোমাকে তবেই ছাড়বো. তোমার শরীর যেভাবে লদলদিয়ে বেড়ে উঠছে, না শরীর ঠিক থাকবে না.”

বাবা আমার উপরে চড়ে বসলো. অনেক চেষ্টা করলাম বাবাকে আটকানোর, কিন্তু হেরে গেলাম. বাবা এক এক করে আমার ব্রা প্যান্টি সহ সালোয়ার কামিজ খুলে ফেলল. আমার ঘাড়ে ও গলায় বাবা পাগলের মত চুমু খেতে লাগল, আমার নরম গোলাপী ঠোট মুখে পুরে চুষতে লাগলো. আমার দুটো দুই হাতে নিয়ে বাবা ইচ্ছামত মনের সুখে টিপতে লাগল, মাঝে মাঝে বোঁটা দুটোও চুষতে লাগলো. ছটফট করছি এদিকে, বুঝতেও পারছি না কি করব.

বাবা এবার ছেড়ে আমার পা থেকে মাথা পর্যন্ত চাটতে লাগলো. কিছুক্ষন শরীর চেটে বাবা আমার বাল বিহীন মসৃন কয়েকটা চুমু খেলো. আমি প্রচন্ড উত্তেজিত হয়ে গেছি. বাবাকে আর বাধা দিলাম না, যা করছে করুক আমি তো মজা পাচ্ছি. বাবা আমার চুষতে লাগলো, কখনো কখনো ভিতরে জিভ ঢুকিয়ে চোঁ চোঁ চুষতে লাগলো. পুরুষের জিভের ছোঁয়া পেলে কোন মেয়েই ঠিক থাকতে পারে না. আমিও নিজেকে ধরে রাখতে পারলাম না.

বাবার মাথা সাথে সজোরে চেপে ধরে উঃ উঃ করতে করতে রস খসালাম. বাবা সব রস চেটে চেটে খেলো. বাবা উঠে তার আমার হাতে ধরিয়ে দিয়ে চুষতে বললো. আমি বাধ্য মেয়ের বাবার মুখে নিয়ে চুষতে লাগলাম. জিভ দিয়ে কয়েকবার ঘষা দিতেই বাবা কাতরে উঠলো.

Check Also

দেখুন কবর খুড়ে কাফন চুরির সময় হটাৎ যা ঘটল ! অল্লাহ্ আমাদের রক্ষা করুন ! (ভিডিওসহ)

দেখুন কবর খুড়ে কাফন চুরির সময় হটাৎ যা ঘটল ! অল্লাহ্ আমাদের রক্ষা করুন ! …

[X]